1. ronyrepoter@gmail.com : admi2019 : nure alam rani
  2. alaminnews524@gmail.com : alamin miya : alamin miya
বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:০৬ অপরাহ্ন

পলাশে মাঠ চষে বেড়াচ্ছে মেয়র প্রার্থী’ যুবলীগ নেতা তুষার

আল-আমিন মিয়া, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০২০
  • ৫৬১ বার পঠিত

আসন্ন ঘোড়াশাল পৌর নির্বাচনের এখনো দীর্ঘ সময় বাকি থাকলেও নিজের প্রার্থীতা জানান দিয়ে পৌর এলাকার প্রতি-টি পাড়া-মহল্লায় উঠান বৈঠক ও মতবিনিময়ের মাধ্যমে মাঠ চষে বেড়াচ্ছে পলাশ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও তারুণ্যের অহংকার নামে খ্যাত আল-মুজাহিদ হোসেন তুষার। দীর্ঘ কয়েক বছর পর আসন্ন ঘোড়াশাল পৌর নির্বাচনের এখনো অনেক সময় বাকি থাকা সত্ত্বেও পৌরবাসীর মধ্যে এখনই নির্বাচনী আমেজ দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিনই পৌর এলাকার পাড়া-মহল্লার বিভিন্ন চা দোকান গুলোতে চায়ের আড্ডায় আলোচ্য বিষয় হয়ে উঠছে আসন্ন পৌর নির্বাচনে মেয়র কে হতে যাচ্ছে।

ঘোড়াশাল পৌরবাসীও ইতিমধ্যে কি পেলাম, কি পেলাম না তা নিয়ে হিসাব-নিকাশ শুরু করে দিয়েছে।

বর্তমানে ঘোড়াশাল পৌরসভার টানা দ্বিতীয় বারের মতো মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ঘোড়াশাল পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব শরিফুল হক শরিফ। আসন্ন পৌর নির্বাচনে যুবলীগ নেতা আল-মুজাহিদ হোসেন তুষার দলীয় ভাবে মনোনয়ন পাবে বলে প্রত্যাশা করছেন। এ বিষয়ে যুবলীগ নেতা তুষার জানান, আসন্ন পৌর নির্বাচনের এখনো অনেক সময় বাকি থাকা সত্ত্বেও পৌরসভার প্রতি-টি মানুষের দ্বারপ্রান্তে যাওয়ার চেষ্টা করছি। দীর্ঘ বছর পর পৌরবাসীর মধ্যেও ভোটের আমেজ দেখতে পাচ্ছি।

জনগণের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি সাড়া পাচ্ছি। আপামর মানুষের মধ্যে নির্বাচনের একটা আমেজ দেখতে পাচ্ছি। স্বতঃস্ফূর্তভাবে সবাই এগিয়ে আসছেন। আশা-আকাঙ্ক্ষার কথা বলছেন। সবাই ভালো কিছু আশা করছেন। যদিও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সময় এখনো অনেক বাকি। তবুও আমি পৌরসভার প্রতি-টি পাড়া-মহল্লায় যাচ্ছি। মানুষের সুখ-দুঃখের কথা জানার চেষ্টা করছি। তুষার আরও বলেন,
আওয়ামীলীগ থেকে দলীয় ভাবে মনোনয়ন আমি পাবো বলে আশাবাদী এবং পৌরবাসী যদি ভোট দিয়ে আমাকে মেয়র নির্বাচিত করেন, তাহলে আধুনিক ঘোড়াশাল পৌরসভা গড়ব। ঘোড়াশাল পৌরসভা হবে ধুলা-বালিমুক্ত, মাদকমুক্ত এবং স্মার্ট পৌরসভা। ঘোড়াশাল পৌরসভাকে একটি স্মার্ট পৌরসভা হিসেবে দেখতে চায় পৌরবাসী। সারাদেশের মধ্যে ঘোড়াশাল পৌরসভা হবে একটি স্মার্ট পৌরসভা। সব এলাকার মানুষ এটাই চাচ্ছেন।

কয়েক দিন ধরে বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে লোকজনের সঙ্গে মতবিনিময় করে তাঁদের চাওয়াগুলো জানছি। নিজেকেও তুলে ধরছি। আমার অবস্থান যাচাই করছি। যত পারি তত মানুষের কাছে যাওয়ার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
অনেকেই আমাকে প্রশ্ন করেছেন, আমি কীভাবে মেয়র হিসেবে কাজ করব? তাঁদের কথার জবাবে বলতে চাই, সোনার চামচ মুখে নিয়ে আমি আসিনি। আমি একজন শ্রমিক নেতার সন্তান। আমি ছোট থেকেই দেখেছি, বাবা নিজের সুখ-দুঃখ সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিয়েছে। তাই, সবাইকে নিয়ে কীভাবে কাজ করতে হয় তা আমি বছরের পর বছর ধরে শিখেছি। আসন্ন ঘোড়াশাল পৌর নির্বাচনে যদি আমি মেয়র হই। তবে সবাইকে নিয়েই ঘোড়াশাল পৌরসভাকে সারাদেশের মধ্যে একটি স্মার্ট পৌরসভা হিসেবে পরিচিত করাবো ইনশা-আল্লাহ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..